June 27, 2022, 3:37 pm

গোয়ালন্দে এক সপ্তাহ ধরে মুক্তি মহিলা সমিতির সহসভাপতি লিলি বেগম নিখোঁজ

সাংবাদিক বামঃ
  • পোস্ট হয়েছেঃ বুধবার, নভেম্বর ১৭, ২০২১
  • 128 পড়া হয়েছেঃ

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোয়ালন্দঃ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া যৌনপল্লির বাসিন্দাদের গঠিত বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা মুক্তি মহিলা সমিতি (এমএমএস) এর কার্যনির্বাহী কমিটির সহসভাপতি লিলি বেগম (৪০) নামের এক নারী নেত্রী এক সপ্তাহ ধরে নিখোঁজ রয়েছেন। সে দৌলতদিয়া বাজার পূর্ব পাড়ার বাসিন্দা। তার গ্রামের বাড়ি জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার পূর্বআমপাড়া।

নিখোঁজ লিলি বেগমের ভাগ্নে মো. শাফি ইসলাম বাদী হয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। তিনি জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার পূর্বআমখাওয়া গ্রামের মো. মিরাজুল হকের ছেলে। এছাড়া মুক্তি মহিলা সমিতির পক্ষ থেকে গত সোমবার রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও গোয়ালন্দ ঘাট থানা সহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে লিখিতভাবে অবগত করা হয়েছে।

নিখোঁজের ভাগিনা সাধারণ ডায়েরীতে উল্লেখ করেন, আমার সাথে খালা প্রতিদিন মোবাইলফোনে কথা বার্তা বলে। গত ১০ নভেম্বর বিকেল ৪ টার দিকে আমি গ্রামের বাড়ী থেকে তার মোবাইল ফোনে কয়েকবার কল করলে ফোনটি বন্ধ পাই। পরদিন ১১ নভেম্বরও ফোন বন্ধ পাওয়ায় তাঁর খোঁজে জামালপুর হতে দৌলতদিয়ায় লিলি বেগমের বাড়ী আসি। এসময় লিলি বেগমের ভাড়াটিয়া পুষ্প ও ঝর্ণাসহ কয়েকজন জানায়, গত বুধবার (১০ নভেম্বর) দুপুর ১ টার দিকে তার কথিত স্বামী স্থানীয় সামছু মাষ্টার পাড়ার আব্দুল লতিফ শেখের বাড়ীতে দাওয়াত খাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন। দিন শেষ হলেও তিনি আর ফিরেননি। এরপর থেকে বিভিন্ন আত্মীয় স্বজনের বাড়ীসহ সম্ভাব্য সব ঠিকানায় খোঁজ নিয়েও তার সন্ধান না পেয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।

এ বিষয়ে নিখোঁজ লিলি বেগমের কথিত স্বামী লতিফের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, লিলি বেগমের সাথে তার দীর্ঘ দিনের ভালবাসার সম্পকের্র সুবাদে আমার বাড়ী পারিবারিক দাওয়াত খেতে আসে। খাবার শেষে সে চলে যেতে চাইলে আমার ছেলে তাকে রিক্সায় উঠিয়ে দিয়ে আসে। এরপর থেকে আমিও তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাচ্ছি।

মুক্তি মহিলা সমিতির প্রকল্প পরিচালক আতাউর রহমান মুঞ্জু বলেন, লিলি বেগম দীর্ঘ দিন মুক্তি মহিলা সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির সহসভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তাকে দ্রুত উদ্ধারের বিষয়ে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে সোমবার (১৫ নভেম্বর) সংস্থাটির পক্ষ থেকে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়েছে। আমরা প্রশাসনের নিকট নিখোঁজ লিলি বেগমকে দ্রুত উদ্ধারের দাবী জানাচ্ছি।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান, তিন দিন আগে লিলি বেগমের নিখোঁজের ব্যাপারে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। আমরা প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাকে শনাক্তের চেষ্টা চালাচ্ছি। ইতিমধ্যে তার ছবি পুলিশ বিভাগের সকল থানায় প্রেরণ করা হয়েছে।

শেয়ার করুনঃ

এই জাতীয় আরোও সংবাদ...
Copyright 2022 | Mys-tv.com
Ghorbaree Wala - ghorbareewala. Ghorbaree Wala
themesba-lates1749691102