June 27, 2022, 3:37 pm

সুজয় হত্যার বিচারের দাবীতে গোয়ালন্দে মানববন্ধন, মহাসড়ক অবরোধ

সাংবাদিক বামঃ
  • পোস্ট হয়েছেঃ রবিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০২১
  • 13 পড়া হয়েছেঃ

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোয়ালন্দঃ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে সুজয় কুমার বিশ্বাস (১৮) নামের তরুণ হত্যার প্রতিবাদে রোববার বিকেলে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ বাজার বাসষ্ট্যান্ডে মানববন্ধন কর্মসূচি শেষে মহাসড়ক অবরোধ কর্মসূচি হয়। প্রায় পৌনে এক ঘন্টা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী।

সুজয় বিশ্বাস গোয়ালন্দ পৌরসভার ৫নম্বর ওয়ার্ড ক্ষুদিরাম সরকার পাড়ার লক্ষ্মন বিশ্বাসের ছোট ছেলে। সে পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। অটোরিক্সা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতো। গত শুক্রবার (১০ ডিসেম্বর) দুপুরে ফরিদপুর সদর উপজেলার মাধবদিয়া ইউপির একটি বাগান থেকে গলায় গামছা দিয়ে ফাঁস নেয়া অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে কোতয়ালী থানা পুলিশ।

লক্ষ্মন কুমার বিশ্বাসের ছয় মেয়ে ও দুই ছেলে। ছয় মেয়ের পর ঘরে জন্ম নেয় বিজয় কুমার বিশ্বাসস ওরফে আরাধন। আরাধনের জন্ম নেয়ার দুই বছর পর সুজয়ের জন্ম। প্রায় তিন বছর আগে প্রতিবেশী দুই বন্ধুর ব্যাটের আঘাতে মারা যায় বিজয় ওরফে আরাধন। এরপর সুজয় একমাত্র উপার্জনক্ষম সন্তান হিসেবে অসুস্থ্য বাবা-মাকে দেখাশুনা করতো।

রোববার (১২ ডিসেম্বর) বিকেল তিনটার দিকে পরিবারসহ কয়েকশ এলাকাবাসী সুজয় ও বিজয় হত্যার বিচারের দাবীতে মহাসড়কের গোয়ালন্দ বাসষ্ট্যান্ডে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী মানববন্ধন ছেড়ে মহাসড়ক অবরোধ করেন। এসময় সুজয়ের ছয় বোন জানায়, গত বৃহস্পতিবার (৯ ডিসেম্বর) সকালে ফোন পেয়ে বেলা ১০টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। বাড়ি ফিরে না আসায় পরিবারের সবাই খোঁজ করতে থাকে। পরদিন দুপুরে পাশের মাধবদিয়া ইউপির একটি বাগান থেকে উদ্ধার লাশ সুজয়ের হিসেবে শনাক্ত করে। পুলিশের ধারণা, তাকে শ্বাসরোধে হত্যার পর তার অটোরিক্সাটি ছিনতাই করে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

সুজয় ও বিজয়ের বোনরা বলেন, তিন বছর আগে ভাই বিজয় ওরফে আরাধনকে এলাকার কাব্য ও দিব্য নামের দুইজন ক্রিকেট খেলার ব্যাট দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে। আমরা এখন পর্যন্ত তার বিচার পাইনি। তিন বছর পর একমাত্র ছোট ভাই সুজয়কেও খুন করলো সন্ত্রাসীরা। সুজয় অটোরিক্সা ভাড়া চালিয়ে সংসার চালাতো। বাবা-মা দুইজন অসুস্থ্য হয়ে হাসপাতালে আছে। বাবা-মাকে দেখার মতো এখন কেউ রইলো না। আমরা দুই ভাই হত্যার বিচার চাই।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর তাদেরকে আশ্বস্ত করে বলেন, ঘটনাটি ফরিদপুর থানার মধ্যে। সুজয়ের বাড়ি গোয়ালন্দে হওয়ায় ফরিদপুর কোতয়ালী থানা পুলিশকে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করবো। তিন বছর আগে বিজয় হত্যার ব্যাপারে ওসি বলেন, আদালতে মামলা চলছে, এখনো বিচার কাজ শেষ হয়নি। আশা করি অপরাধীরা উপযুক্ত শাস্তি পাবেন। পরে ওসির অনুরোধ অবরোধ তুলে নেন সবাই।

শেয়ার করুনঃ

এই জাতীয় আরোও সংবাদ...
Copyright 2022 | Mys-tv.com
Ghorbaree Wala - ghorbareewala. Ghorbaree Wala
themesba-lates1749691102