June 27, 2022, 1:49 pm

ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চাঁদা দাবীর অভিযোগে বিক্ষোভ, মানববন্ধনঃ সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ অস্বীকার চেয়ারম্যানের

সাংবাদিক বামঃ
  • পোস্ট হয়েছেঃ বুধবার, ডিসেম্বর ১৫, ২০২১
  • 64 পড়া হয়েছেঃ

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোয়ালন্দঃ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে পূর্বপাড়া যৌনপল্লির বাসিন্দাদের কাছ থেকে বিজয় দিবস পালনে চাঁদা দাবীর অভিযোগ উঠেছে। এর প্রতিবাদে বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে পল্লির বাসিন্দারা। এর আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় যৌনপল্লির বাসিন্দারা তাৎক্ষনিক বিক্ষোভ করে।

বুধবার (১৫ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় দৌলতদিয়া রেলষ্টেশনে ‘অসহায় নারী ঐক্য সংগঠন’ এবং দৌলতদিয়া পূর্বপাড়া এলাকাবাসীর ব্যানারে মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে। এতে পল্লির কয়েকশ নারী অংশ গ্রহণ করেন। এসময় দৌলতদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মোশাররফ হোসেন ও কৃষকলীগ নেতা সাত্তার ফকির বিক্ষোভকারীদের সাথে সমঝোতার চেষ্টা করলে আন্দোলন স্থগিত করেন।

এসময় যৌনকর্মীদের সংগঠন অসহায় নারী ঐক্য সংগঠনের সভানেত্রী ঝুমুর বেগম বলেন, আমরা চাঁদা দাবীর প্রতিবাদে মানববন্ধনে দাড়িয়েছি। ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি মোশাররফ প্রামানিক সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ এসে পল্লিতে যাতে আর কোন ধরনের চাঁদাবাজি না ঘটে সে বিষয়ে দায়িত্ব নিচ্ছেন। তবে আমাদের সংগ্রাম এখানেই শেষ নয়, চালিয়ে যাব। যদি আমাদের কষ্ট না দূর হয় তাহলে আমরা আবার আন্দোলনে নামবো। তাদের আশ্বাসকে মেনে নিয়ে আজকের মতো কর্মসূচি স্থগিত ঘোষণা করছি।

ঝুমুর বেগম আরো বলেন, ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস পালনে পূর্বপাড়া যৌনপল্লির বেশকিছু বাড়ি মালিক ও ভাড়াটিয়ার কাছে ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে ইউনিয়ন কৃষককলীগ আহ্বায়ক বাকেন শেখ, স্থানীয় যুবলীগ নেতা আমজাদ প্রামানিকরা এসে চিঠি দেন। তারা অবস্থা বুঝে ১০-২০ হাজার টাকা পর্যন্ত চাঁদা নির্ধারণ করেন। এসব চিঠি পাওয়ার পর ক্ষুদ্ধ হয়ে ওঠেন পল্লির বাসিন্দারা। এসময় তারা ‘অসহায় নারী ঐক্য সংগঠন’ এর স্মরণাপন্ন হলে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কয়েকশ বিক্ষুদ্ধ বাসিন্দা বিচারের দাবীতে পল্লির বাইরে বের হয়ে দৌলতদিয়া রেলওয়ে ষ্টেশন এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেন।

আকরাম শেখ নামের এক বাড়ির মালিক দাবী করেন, ইউপি চেয়ারম্যানের ঘনিষ্টকর্মী কৃষকলীগ নেতা বাকেন ও যুবলীগ নেতা আমজাদসহ কয়েকজন পল্লির বিভিন্ন বাড়ি মালিক ও ভাড়াটিয়াদের চিঠি ধরিয়ে দেন। তারা ৫ হাজার থেকে ১০-১৫ হাজার টাকা পর্যন্ত চাঁদা দাবী করেন। তাঁর কাছে চিঠি ধরিয়ে দিয়ে ১০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করা হয়।

এদিকে বুধবার দুপুর দেড়টায় দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান মন্ডল সাংবাদিক সম্মেলন করে বলেন, দুই বছর ধরে নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নিয়েছি। কোন দিন চাঁদাবাজি হয়নি। এর আগে ঘাট এলাকায় লাখ লাখ টাকা চাঁদাবাজি হতো। পল্লিতে কে বা কারা আমার নাম ব্যবহার করে চিঠি দিয়েছে জানানেই।

তিনি বলেন, গত বুধবার উপজেলার মাসিক আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় দৌলতদিয়া ইউনিয়নকে মাদকমুক্ত ঘোষণা করায় একটি চক্র আমাকে হেয় করতে উঠেপড়ে লেগেছে। আমি ঘোষণা করছি, যতদিন বেঁচে থাকবো কোন চাঁদাবাজির সাথে জড়িত থাকবো না। সকলের সহযোগিতা পেলে দৌলতদিয়াকে মাদকমুক্ত নয়, চাঁদাবাজ এবং সন্ত্রাসমুক্ত করা হবে।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর বলেন, যৌনপল্লিতে ইউপি চেয়ারম্যানের নাম বলে কিছু ব্যক্তি চিঠি দিয়ে চাঁদা দাবী করেছে বলে পল্লির বাসিন্দারা বিক্ষোভ করেছে। তবে আমরা লিখিত অভিযোগ পায়নি। এ ধরনের ঘটনা ঘটলে সে যেই হোক অভিযোগ পেলে কঠোর আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

শেয়ার করুনঃ

এই জাতীয় আরোও সংবাদ...
Copyright 2022 | Mys-tv.com
Ghorbaree Wala - ghorbareewala. Ghorbaree Wala
themesba-lates1749691102